রাত ৮:২৯, মঙ্গলবার, ১০ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ২৩শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, ১৮ই শাবান, ১৪৪০ হিজরী

চট্টগ্রামে খাদ্যশস্য আমদানিতে আইপি ইস্যুর সুযোগ চায় ব্যবসায়ীরা

107

চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি (সিসিসিআই) খাদ্যশস্য আমদানিতে প্রয়োজনীয় আইপি (ইমপোর্ট র্পামিট) পূর্বের ন্যায় চট্টগ্রাম উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্র থেকে ইস্যু করার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছে।
রোববার সিসিসিআই সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের আবেদন জানিয়ে কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরীর কাছে চিঠি পাঠান ব্যবসায়ীরা।
সংগঠনের সভাপতি মাহবুবুল আলম স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়,২০০২ সাল থেকে এই আইপি চট্টগ্রাম থেকে ইস্যু করা হলেও সম্প্রতি উদ্ভিদ সংগনিরোধ বিধিমালা-২০১৮ মোতাবেক চট্টগ্রাম কার্যালয়ের পরিবর্তে কৃষি অধিদপ্তর ঢাকা থেকে আইপি ইস্যু করার নির্দেশনা জারীর প্রেক্ষিতে এই আবেদন করা হচ্ছে। একই আইনে উদ্ভিদ ও উদ্ভিদজাত পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে কোন বিধিমালা লংঘন করা হলে বিশেষ ছাড়পত্র (এসআরও) প্রদান করার বিধানও রহিত করা হয় যা পুনর্বিবেচনার দাবী জানায় সিসিসিআই।
উল্লেখ্য, খাদ্য হিসেবে ব্যবহৃত খাদ্যশস্য যেমন- চাল, গম, ভুট্টা, বিভিন্ন ধরণের ডাল, তৈলবীজ, মসলা, তাজা ও শুকনা ফল ইত্যাদি আমদানিতে এলসি খোলার পূর্বে আইপি নেয়া বাধ্যতামূলক এবং এত বছর যাবৎ চট্টগ্রাম কার্যালয় থেকে এ আইপি ইস্যু করা হতো। কিন্তু উল্লেখিত বিধিমালা ও সাম্প্রতিক নির্দেশনার ফলে ঢাকাস্থ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে আইপি সংগ্রহ করা বৃহত্তর চট্টগ্রামের আমদানিকারকদের জন্য অত্যন্ত সময় সাপেক্ষ ও ব্যয়বহুল হবে বলে ব্যবসায়ীরা মনে করছেন।
সংশ্লিষ্ট আমদানিকারক ও শিল্পোদ্যোক্তাগণ এতে অসুবিধার সম্মুখীন হবেন। এ ধরণের নির্দেশনার ফলে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা, আমদানী রপ্তানী কার্যক্রম ব্যাহত এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও রাজস্ব আহরণ বাধাগ্রস্থ হবে বলেও চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।(বাসস) :



sky television /স্কাই টিভি


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *